ঈদের দ্বিতীয় দিনেও রাজধানীতে পশু কোরবানি

  • অনলাইন
  • সোমবার, ১১ জুলাই ২০২২ ১১:০৭:০০
  • কপি লিঙ্ক

ত্যাগের মহিমায় গতকাল রবিবার সারা দেশে পালিত হয়েছে ঈদুল আযহা, পছন্দের পশু কোরবানি দিয়েছেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা। তবে আজ সোমবার ঈদের দ্বিতীয় দিনেও চলছে পশু কোরবানি।  

আজও রাজধানীর বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা ও সড়কগুলোতে পশু কোরবানি দেওয়ার দৃশ্য চোখে পড়েছে। সবাই উৎসাহ, উদ্দীপনায় নিজেদের মতো পালন করছেন ঈদ।

সারা রাজধানীতেই ঈদের দ্বিতীয় দিনে কমবেশি পশু কোরবানি হলেও পুরান ঢাকায় সেই চলটা বেশি। ঐতিহ্যগতভাবে পুরান ঢাকাবাসী যুগ যুগ ধরে এটা করে আসছেন।
ইসলামি বিধান মতে, ঈদের দিন ছাড়াও আরও দু‌দিন, মানে মোট তিন দিন কোরবানি দেওয়া যায়। জিলহজ মাসের ১১ তারিখ (ঈদের দ্বিতীয় দিন) ও ১২ তারিখও (ঈদের তৃতীয় দিন) সূর্যাস্তের আগ পর্যন্ত কোরবানি করার সুযোগ থাকে। সেই বিধান মেনে অনেক মুসলমান ঈদের দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিন কোরবানি করেন।

রাজধানীতে ঈদের দ্বিতীয় দিন কোরবানি করার আরও একটা বড় কারণ, কসাইর অভাব। ঈদের প্রথম দিন অনেকেই কসাই সঙ্কটে গরু জবাই দিতে পারেন না। অনেকের পক্ষেই পারিবারিকভাবে মাংস প্রক্রিয়াজাত করা, বিলিবণ্টন করা সম্ভব হয়ে ওঠে না, তাই তাদেরকে পেশাদার কিংবা মৌসুমি কসাইর ওপর নির্ভর করতে হয়।

পুরান ঢাকার এক বাসিন্দা জানালেন, ঈদের আগের দিন রাতে তিনি গরু কিনেছেন। কিন্তু কসাই মেলেনি। তাই ঈদের পরের দিনটাকে তিনি পশু কোরবানির জন্য বেছে নিয়েছেন। 

অনেকে আবার একাধিক গরু বা পশু কোরবানি করে থাকেন। তাই প্রথম দিন সব পশু কোরবানি না করে, পরের দিনও পশু জবাই করেন। এতে মাংস প্রক্রিয়াজাত করা যেমন সহজ হয়, তেমন ঈদের আনন্দের রেশ থাকে বেশি সময়। কেউ আবার ঈদের আনন্দ জমিয়ে রাখতে ঈদের তিন দিনই পশু কোরবানি করেন।

পুরান ঢাকার আরও এক বাসিন্দা জানিয়েছেন, পারিবারিক ঐতিহ্য মেনেই প্রতি বছর তারা তিনটি গরু কোরবানি দেন। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। ঈদের দিন একটি গরু কোরবানি দিয়েছেন, দ্বিতীয় দিনও আরেকটি গরু কোরবানি দিয়েছেন। বাকি গরুটা তিনি কোরবানি দেবেন ঈদের তৃতীয় দিন।

বাড্ডা এলাকার এক বাসিন্দা জানালেন দ্বিতীয় দিন কোরবানি করার আরেক কারণ। তারা দুই ভাই দুটো গরু কিনেছেন কোরবানির জন্য, একসাথে দুটো গরু জবাই দিলে কাটাকুটিতে সমস্যা হয়। তাই একটি গরু তিনি কোরবানি দিয়েছেন ঈদের দ্বিতীয় দিন। 

মৌসুমি কসাইরাও জানালেন, ঈদের প্রথম দিন কসাই কম থাকায় অনেকেই কোরবানি দিতে পারেননি। তাই দ্বিতীয় দিনও অনেকে কোরবানি করছেন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

মন্তব্য