বিয়ের দাওয়াত না পাওয়ায় বাবাসহ বরকে কোপালো প্রতিবেশীরা

  • অনলাইন
  • বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১ ১২:৫২:০০

বিয়ের অনুষ্ঠানে দাওয়াত পাননি। তাই রাগ জমিয়ে রেখেছিল প্রতিবেশীরা। সেটা থেকেই বর ও তার বাবাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে তারা। মঙ্গলবার রাতে ত্রিপুরার ক্যানিংয়ের দাঁড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। খবর আনন্দবাজারের।

সরকারি নির্দেশ মেনেই ঘরোয়াভাবে বিয়ের অনুষ্ঠান আয়োজন করেছিলেন এক ব্যক্তি। কিন্তু তা পছন্দ হয়নি কয়েকজন প্রতিবেশীর। নিমন্ত্রণ না পেয়ে ক্ষেপে যায় তারা। তাই ধারালো অস্ত্র নিয়ে বর ও তার বাবাকে আক্রমণ করে। বর ও তার বাবা এখন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে।

করোনার সংক্রমণ রোধে বিয়ে বা অন্যান্য অনুষ্ঠানে ৫০ জনের বেশি লোক সমাগম করা যাবে না বলে জানিয়েছে সরকার। সেই নির্দেশনা মেনে কয়েকদিন আগে ঘনিষ্ঠ আত্মীয়-বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে বৌভাতের অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন দাঁড়িয়া গ্রামের রমেশ সর্দার ও তার পরিবার।

তবে বৌভাতের রাত থেকেই প্রতিবেশী কয়েকজন রমেশের বাড়িতে ইট পাটকেল ছুঁড়তে থাকে। প্রথমে বুঝতে না পারলেও পরে তারা জানতে পারেন বৌভাতে দাওয়াত পাননি বলেই প্রতিদিন রাতে তাদের বাড়ি লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুঁড়ছেন প্রতিবেশীর।

মঙ্গলবার রাত ২টার দিকেও একই ঘটনা ঘটে। এদিন তাদের হাতেনাতে ধরে ফেলেন রমেশের বাবা বঙ্কিম সর্দার। তখন হঠাৎ বঙ্কিমকে ধারালো দা দিয়ে আঘাত করে অভিযুক্তরা। বাবাকে বাঁচাতে গেলে আহত হয় রমেশও। তার মাথা ফাটে। তাদের চিৎকারে আশেপাশের মানুষজন জড়ো হয়। পরে তাদের দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

ঘটনার পরই পালিয়ে যায় হামলাকারীরা। হাসপাতালের বিছানায় বসে রমেশ বলেন, করোনার কারণে সেভাবে কাউকে নিমন্ত্রণ করিনি। দুইচারজন বন্ধু-বান্ধব নিয়ে অনুষ্ঠান করি। তবে তাদের কেন নিমন্ত্রণ করিনি, সেই কারণেই আমাদের উপর এই অত্যাচার শুরু করে তারা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

মন্তব্য