জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে সিরিজে সমতা ফেরাল টাইগাররা

  • অনলাইন
  • রবিবার, ৩১ জুলাই ২০২২ ০৮:০৭:০০
  • কপি লিঙ্ক

তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয়টিতে জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে সমতা ফেরাল টাইগাররা। রবিবার হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে ৭ উইকেটে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৫৬ রান করেন লিটন দাস।

রবিবার টসে জিতে হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে ব্যাটিংয়ে নামে জিম্বাবুয়ে। তবে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো করতে পারেনি তারা। প্রথম বলেই রেজিস চাকাভাকে নুরুল হাসান সোহানের ক্যাচ বানান মোসাদ্দেক। ওই ওভারের শেষ বলে আউট করেন আগের ম্যাচের হাফ সেঞ্চুরিয়ান ওয়েসলি মাদাভিরাকেও। ৫ বলে ৪ রান করে সাজঘরে ফেরত যান তিনি।  

এক ওভারে দুই উইকেট নেওয়ার পর মোসাদ্দেক সাফল্য পান নিজের দ্বিতীয় ওভারেও। এবার তার শিকার হন ক্রেইগ আরবিন। ৪ বলে ১ রান করে সাজঘরে ফেরত যান স্বাগতিক অধিনায়ক।
নিজের তৃতীয় ওভারের চতুর্থ বলে মোসাদ্দেক ফেরান শেন উইলিয়ামসকে। ৭ বলে ৮ রান করা এই ব্যাটারের ক্যাচ নিজেই নেন তিনি। ইনিংসের সপ্তম ওভারে মিল্টন সাম্বাকে ফিরিয়ে ফাইফার পূর্ণ করেন মোসাদ্দেক। তার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের প্রথম ও টি-টোয়েন্টি কোনো বাংলাদেশির চতুর্থ পাঁচ উইকেট এটি।  

এরপর অবশ্য ঘুরে দাঁড়ায় জিম্বাবুয়ে। ৩১ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বিপদে থাকা দলকে উদ্ধার করেন রায়ান বার্ল ও সিকান্দার রাজা। দুজন মিলে গড়েন ৮০ রানের জুটি। ৩২ রান করা বার্লকে বোল্ড করে তাদের জুটি ভাঙেন হাসান মাহমুদ।

সিকান্দার রাজাও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। ৫৩ বলে ৬২ রান করে মুস্তাফিজুর রহমানের বলে মুনিম শাহরিয়ারের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে আউট হন তিনি। তাতে জিম্বাবুয়ের ইনিংসও খুব একটা লম্বা হয়নি। ৮ উইকেট হারিয়ে ১৩৫ রানে থামে তারা।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে লিটন দাসের ব্যাটে উড়ন্ত শুরু পায় বাংলাদেশ। প্রথম ৬ ওভারে ৫৩ রান তোলে সফরকারীরা। তবে পঞ্চম ওভারে ওপেনার মুনিম শাহরিয়ার ব্যক্তিগত ৭ রানে বোল্ড হয়ে ফেরেন।

মুনিম দ্রুত ফিরে গেলেও এনামুল হক বিজয়কে সঙ্গে নিয়ে ঝড়ো গতিতে রান তোলা অব্যাহত রাখেন লিটন। একপর্যায়ে ৫৬ রান করে আউট হন তিনি। লিটন ফেরার কিছুক্ষণ পরই সাজঘরের পথ ধরেন বিজয়ও। ১৫ বলে ১৬ রান করেন তিনি। এরপর চতুর্থ উইকেট জুটিতে আফিফ হোসেন ৩০ এবং নাজমুল হোসেন শান্তর ১৯ রানে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

মন্তব্য