আমাকে যদি কোচিংও করাতে হয় তাহলে তো সমস্যা : সাকিব

  • অনলাইন
  • সোমবার, ২০ জুন ২০২২ ০১:০৬:০০
  • কপি লিঙ্ক

অধিনায়কের পালা বদলের ম্যাচে প্রত্যাশা ছিল আকাশ ছোঁয়া। কিন্তু অ্যান্টিগা টেস্টে যা হলো তাতে হতাশা ছাড়া কিছুই দেখল না বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ে বরাবরের মতোই ধরা দিল ব্যর্থতা। ব্যাটারদের উইকেটে আসা-যাওয়ার মিছিলে টেস্টের প্রথম দিনই ম্যাচ থেকে ছিটকে গেল বাংলাদেশ। ফলাফল সাত উইকেটের হার।

এমন পরাজয়ের পর অধিনায়ক সাকিব আল হাসান জানালেন, বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের টেকনিকে অনেক সমস্যা। এসব উন্নতি করা কোচদের কাজ। ক্রিকেটারদের টেকনিক নিয়ে কোচদের সঙ্গে আলোচনা করার আহ্বান জানালেন সাকিব।

সাকিব বলেছেন, ‘আমাদের টেকনিক্যালি অনেক সমস্যা আছে। আমার মনে হয় না টেকনিক্যালি সাউন্ড ক্রিকেটার আমাদের খুব বেশি আছে। আমাদের দলে যারা আছে, সবারই অনেক টেকনিক্যাল সমস্যা আছে। তবে একটা পথ বের করতে হবে যে কীভাবে রান বের করা যায়, কীভাবে ক্রিজে থাকা যায়। সেটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’

ব্যাটিং ব্যর্থতা বাংলাদেশের পুরোনো রোগ। তবে শেষ কয়েক টেস্ট ধরে এই ব্যর্থতা যেন আরো চেপে ধরেছে বাংলাদেশকে। কিছুতেই ব্যাটিং লাইনআপ নিয়ে স্বস্তি পাওয়া যাচ্ছে না। বিশেষ করে টপ অর্ডার। মূলব্যাটারদের দায়িত্ব যখন ইনিংস মেরামত করা তখন তারাই উইকেট উপহার দিয়ে আসছেন প্রতিপক্ষকে। ব্যাপারটি মোটেই গ্রহণযোগ্য নয় বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের কাছে। সতীর্থদের এই ব্যর্থতা থেকে বেরোনোর উপায় খোঁজার আহ্বান জানিয়েছেন অধিনায়ক। 

সাকিব বলেছেন, ‘এটা(টেকনিক সমস্যা নিয়ে আলোচনা) তো আমার আসলে আলোচনার বিষয় নয়। কোচেরই আলোচনা করার বিষয়। আমি যদি কোচিংও করাই, অধিনায়কত্বও করি, তাহলে তো সমস্যা। আমার যতটুকু কাজ, আমি ততটুকুতেই থাকলে ভালো হয়। আমার দায়িত্ব যতটুকু আছে, ততটুকু পালন করার চেষ্টা করব। বাকি যাদের যাদের যে অংশ আছে, তারা সবাই নিজের জায়গা থেকে দায়িত্ব নিয়ে কাজ করলে সবার জন্য কাজটা সহজ হয়।’

অ্যান্টিগা টেস্ট জয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট মাঠে গড়াবে আগামী ২৪ জুন। দুটি ম্যাচই বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অধীনে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

মন্তব্য