কুড়িগ্রামে মাসহ ৫ মাসের শিশুকে গলা কেটে হত্যা

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে ৫ মাসের এক শিশুকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। সেইসাথে শিশুটির মাকেও গলা কেটে হত্যা করা হয়। মৃত শিশুটির নাম হাবিব। তার মা মোছা. হাফসা আকতারকে (২৬) আশঙ্কাজনক অবস্থায় পরিত্যাক্ত একটি ধান খেত থেকে উদ্ধার করে এলাকাবাসীরা। পরে তাকে প্রথমে রৌমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে এবং পরে ময়মনসিংহ মেডিকেলে নেয়ার পথে রাস্তায় মৃত্যু ঘটে। বিষয়টি রৌমারী থানার ওসি মোন্তাছের বিল্লাহ নিশ্চিত করেছেন। 

শনিবার ভোররাতে জেলার রৌমারী উপজেলার সদর ইউনিয়নের নতুন বন্দর হাজিপাড়া গ্রামে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। 

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, শনিবার ভোররাতে প্রচন্ড বৃষ্টির মধ্যে হঠাৎ প্রতিবেশী আব্দুর সবুর নামে এক ব্যক্তি পুকুরপাড়ের পূর্বপাশে ধানখেত থেকে চিৎকারের শব্দ শুনে সকলকে ডাক দেন। পরে প্রতিবেশীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই শিশুর গলা কাটা মরদেহ ও পাশে গলাকাটা শিশুরটির মা হাফসাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে। এরপর তারা তাদের পরিবারের সহায়তায় শিশুর মরদেহসহ হাফসাকে রৌমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরে হাফসার অবস্থা গুরুতর হলে চিকিৎসক তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। 
নতুনবন্দর হাজিপাড়া গ্রামের আব্দুর সবুর বলেন, ভোর বেলা পুকুরপাড়ের পূর্বপাশে ধানখেতে গোঙরানির শব্দ কানে আসলে এগিয়ে দেখি হাফসাকে গলাকাটা অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে থাকতে ও তার পাশে গলাকাটা অবস্থায় শিশুটির মরদেহ। এরপর আমার চিৎকারে আশ-পাশের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। পরে রৌমারী থানা পুলিশকে খবর দিলে তারা এসে শিশুর মরদেহ ও মা হাফসাকে উদ্ধার করে রৌমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়। এরপর হাফসার অবস্থার অবনতি ঘটলে ময়মনসিংহ মেডিকেলে নেয়ার পথে মৃত্যু ঘটে। 

এ ব্যাপারে রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ মোন্তাছের বিল্লাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শিশু ও মায়ের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রবিবার দুপুরে কুড়িগ্রাম মর্গে প্রেরণ করা হবে। তবে তার স্বজনদের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

মন্তব্য