সন্তানরা ঘুম থেকে উঠে দেখে বাবা-মায়ের লাশ

  • অনলাইন
  • মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর ২০২১ ০৩:২৮:০০

নেত্রকোণার মদনে প্রতিবেশীদের ডাকাডাকিতে সন্তানরা ঘুম থেকে উঠে দরজা খুলে দেখে বাবা-মায়ের লাশ। পরে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে সকাল পৌনে ১০টার দিকে ঘর থেকে মীর ও হিমার লাশ উদ্ধার করে।  উপজেলার তিয়শ্রী ইউনিয়নের বালালী গ্রাম থেকে লাশ দুটি উদ্ধার করা হয়। 

মৃতরা হলেন- উপজেলার আলমশ্রী গ্রামের শামছু মীরের ছেলে নান্দু মীর (৫৫) ও তার স্ত্রী হিমা আক্তার (৪৫)। ধারণা করা হচ্ছে- স্ত্রী হিমাকে হত্যার পর স্বামী মীর আত্মহত্যা করেছে।

জানা যায়, রাত ১০টার পর থেকে ভোর ৬টার মধ্যে কোন এক সময়ে এ দম্পতির মৃত্যু হয়েছে। দাম্পত্য কলহের জেরে নান্দু মীর তার স্ত্রীকে হত্যার পর নিজে আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। লাশ ময়নাতদন্তের জন্যে নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মদন থানার ওসি মো. ফেরদৌস আলম জানান, প্রায় ১০ বছর আগে নান্দু বালালী গ্রামের আব্দুল মন্নাফের মেয়ে হিমাকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকে নান্দু স্ত্রীকে নিয়ে শ্বশুর বাড়ির পাশে একটি বাড়িতে থাকতেন। তাদের সংসারে অপূর্ব নামে ৮ বছরের একটি ছেলে ও বাবনী আক্তার নামে ৫ বছরের একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে।

তিনি বলেন, সোমবার রাতের খাবার খেয়ে মীর ও হিমা সন্তানদের নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে এক ব্যক্তি মীরের কাছে কাজে গিয়ে তাকে ডাকাডাকি করেন। কিন্তু ঘর থেকে কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে বিষয়টি প্রতিবেশীদের জানান।

তিনি আরও বলেন, ঘরের ভেতরে স্ত্রীর রক্তাক্ত লাশ আর ঘরের আড়ার সঙ্গে ফাঁস লাগানো অবস্থায় স্বামী লাশ পাওয়া যায়।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

মন্তব্য